ছোটবেলায় কৃষ্ণকে মারার জন্যে মামা কংশ পূতনা নামক এক রাক্ষসীকে পাঠায়। তারপর?

নিউজ ডেস্কঃ শ্রীকৃষ্ণ যিনি আসলে বিষ্ণুর একটি অবতার।তবে শ্রীকৃষ্ণের গায়ের রঙ কেন নীল সে বিষয়ে অধিকাংশ মানুষই জানেন না।জানুন কেন শ্রীকৃষ্ণের গায়ের রঙ নীল।

আমরা শ্রীকৃষ্ণকে ভগমান বিষ্ণু অবতার বলে মনে করি।শ্রীকৃষ্ণ যার গায়ের রঙ আমরা নীল বলে জানি।কিন্তু কেন কৃষ্ণের গায়ের রঙ নীল এই নিয়ে নানা ধরনের মতামত প্রচলিত আছে।একটি হল পৌরাণিক কাহিনী অনুযায়ী শ্রীকৃষ্ণ বিষ্ণু অবতার।আর তাই ভগবান বিষ্ণু সর্বদায় গভীর সমুদ্রে বসবাস করেন।ভগবান বিষ্ণুর এই সাগরে বসবাস করার জন্যেই শ্রীকৃষ্ণের গায়ের রঙ নীল হয়েছে।

আরেকটি কাহিনী হল যে ছোটবেলায় কৃষ্ণকে মারার জন্যে মামা কংশ পূতনা নামক এক রাক্ষসীকে পাঠায়।ওই রাক্ষসি কৃষ্ণকে বিষ মেশানো দুগ্ধ পান করায়।যেহেতু কৃষ্ণ দেব অবতার তাই কৃষ্ণের মৃত্যু হয় না।আর এই বিষের কারনেই তার গায়ের রঙ নীল হয়ে যায়।

তৃতীয় আরেকটি কাহিনী হল যে যমুনা নদীতে কালিয়া নাগ নামক এক নাগরাজ বসবাস করতেন যার উপদ্রবে বকুলের গ্রামবাসীরা সমস্যায় পরেছিলেন।এই সমস্যা থেকে গ্রামবাসীকে রক্ষা করতে গিয়ে কালিয়া নাগের সাথে কৃষ্ণ যুদ্ধে বিরত হন।যুদ্ধরত অবস্থায় কালিয়া নাগের থেকে নির্গত বিষের প্রকোপে শ্রীকৃষ্ণের গায়ের রঙ নীল হয়ে যায়।এছাড়াও বলায় হয়েছে যে  শ্রী কৃষ্ণের জন্ম বিশ্বের সকল দুষ্টদের দমন করার জন্য হয়েছিল তাই তিনি নীল প্রতীক হিসাবে অবতীর্ণ হয়েছিলেন। আর বলা হয় যে শ্রীকৃষ্ণের এই নীল রঙ শুধু তারায় দেখতে পারেন যারা শ্রীকৃষ্ণের সত্যিকারের ভক্ত।       

Leave a Reply

Your email address will not be published.