পাকিস্তানের চাচার ৬ বউ এবং ৫৪ সন্তান। কি করেন চাচা?

নিউজ ডেস্ক –  গোটা বিশ্বে একজনের বেশি বিবাহ করা আইনানুগভাবে অপরাধ হিসেবে মান্যতা করা হয়। যদিওবা মুসলিম সম্প্রদায়ের ক্ষেত্রে ৪ বিবাহের রেওয়াত রয়েছে। যদিও প্রথম বিয়ের পরে বাকি বিয়ে করতে গেলে আগে প্রথম স্ত্রীর সম্মতির প্রয়োজন হয়। কিন্তু সম্প্রতি একটি ব্যক্তির কথা প্রকাশ্যে এসেছে যিনি গণবিবাহের রেকর্ড ভেঙেছেন। আর এই ব্যক্তিটি হলো পাকিস্তানের বাসিন্দা  যার নাম নাম আব্দুল মজিদ মেঙ্গাল।

 একটি সাক্ষাৎকারে আব্দুল মজিদ মেঙ্গাল তার গুণকীর্তন গেয়ে জানিয়েছেন, তারপর প্রচুর পরিমাণে রয়েছে শারীরিক চাহিদা। সেই কারণে তিনি মাত্র ১৮ বছর বয়সে প্রথম বিয়ে করে। যদিও পরবর্তীতে প্রায় ৬টি বিয়ে করেছেন তিনি। আর প্রত্যেকটি করেছেন যৌন মিলনের তাগিদে। বর্তমানে তার বয়স এসে দাঁড়িয়েছে ৭০। আর এই বয়সে তিনি ৫৪ জন সন্তানের পিতা। যদিও এই ট্রাকচালকের সংসার খুব একটা সচ্ছল নয়। 

জানা গিয়েছে আর্থিক অভাবের কারণে তার ২টি স্ত্রী ও ১২টি সন্তান মারা গিয়েছে। যার কারণে বর্তমানে তার অবশিষ্ট রয়েছে ৪২টি সন্তান যাদের সকলেরই বয়স ১০ বছরের নিচে। যাদের মধ্যে রয়েছে ২২টি ছেলে ও ২০টি মেয়ে। তবেই ৬টি কামরা বিশিষ্ট নিজের বাড়িতে অনটনের মধ্যেই দিন কাটছে আব্দুল মজিদ মেঙ্গাল  সহ তার পরিবারের। বর্তমানে বাড়িতে একটি মাত্র আয়ক্ষ্যম ব্যক্তি থাকায়  এই ৭০ বছর বয়সে এসেও কালের ঘাম ছোটাতে হচ্ছে ট্রাকচালকের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.