আফ্রিকার গ্ৰামে ইবোলায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে প্রত্যেকটি মায়ের। কারণ জানলে অবেক হবেন

নিউজ ডেস্কমা হচ্ছে এমন একজন যিনি গোটা পৃথিবীর আঘাত থেকে রক্ষা করে শিশুকে। তবে সামান্য একটি গ্রাম রয়েছে যেখানে মায়ের কোন চিহ্ন নেই। ‌ অর্থাৎ গ্রামে প্রত্যেকটা শিশুই মাহারা। ব্যাপারটি শুনতে আজব লাগলেও বর্তমানে সত্য। যদি এর পেছনে রয়েছে এক প্রাণঘাতীকর  কারণ।

এমন বিরল দৃশ্য দেখা যায় পশ্চিম আফ্রিকার লাইবেরিয়ার গ্ৰামে। কারণ সাবে জানা যায় সেই গ্রামে ইবোলায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে প্রত্যেকটি মায়ের। ঘটনা প্রসঙ্গে স্ট্রীট চাইল্ড একটি বেসরকারি সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা টম ডেন্নাট জানান, ঘটনাটি শুরু হয়েছিল ইবোলায় আক্রান্ত গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত নারীর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার মাধ্যমে। গ্রামের প্রথা অনুযায়ী মৃত মহিলার শবদেহ স্নানের জল দিয়ে স্নান করেছিল গ্রামের প্রত্যেকটি মহিলা। যার কারণে তাঁরাও একে একে ইবোলার আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তাই বর্তমানে প্রত্যেকটি শিশু মা হারা এবং গ্রামটি সম্পূর্ণ মাতৃত্ব হীন। বর্তমানে গ্রামে কিছু অবশিষ্ট বৃদ্ধা রয়েছেন যারা শিশুদের দেখভাল করেন। পাশাপাশি গ্রামে পুরুষরা কাজের ক্ষেত্রে বাইরে থাকে সর্বদা। সুতরাং বৃদ্ধা মহিলাদের পক্ষে শিশুদের দেখভাল করা খুব কষ্টদায়ক হয়ে উঠেছে।

একই প্রসঙ্গে একবার স্লো ব্রেত নামে স্ট্রিট চাইল্ডের এক কর্মি জানান, এটা এখন মা ছাড়াদের গ্রাম। শিশুরা এখানে অবাক চোখে নিজেদের মায়েদের অপেক্ষা করে চলেছে। শিশুরা বড়ই উদগ্রীব। যদিও পরবর্তীতে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের পরিসংখ্যান অনুযায়ী ইবোলার কারণে গিনি, সিয়েরা লিয়ন ও লাইবেরিয়ার মতো শহরে প্রায় ১০ হাজারের বেশি শিশুরা তার মা কিংবা বাবাকে হারিয়েছে। এই মারণ রোগের কারণে আজ অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছে বহু শিশু।

Leave a Reply

Your email address will not be published.