যে সমস্ত মানুষ পাহাড়ে চড়া খুব পছন্দ করে তাদের কাছে ঘুরতে যাওয়ার জন্য তাজিকিস্তান উপযুক্ত জায়গা

নিউজ ডেস্কঃ মধু চন্দ্রিমা করতে যেতে চান? তবে কত দিনের জন্য? ৭ দিন, ১০ দিন খুব বড় জোর হলে দুই সপ্তাহ। কিন্তু কখনও ভেবে দেখেছেন যে যদি টানা ৪০ দিন ধরে মধু চন্দ্রিমা করা যেত। বা সরকারের থেকেই এমন ছুটি পাওয়া যেত। হ্যা এমনই এক নিয়ম রয়েছে পৃথিবীর এক দেশে। যেখানে টানা ৪০ দিন পর্যন্ত মধুচন্দ্রিমাতে গিয়ে কাটানও যায়।

সেন্টাল মধ্য এশিয়ায় অবস্থিত এমন একটি দেশ তাজিকিস্তান। দেশটির উত্তরে রয়েছে কিরগিজস্তান দক্ষিনে আফগানিস্তান পূর্বে চীন এবং পশ্চিমে উজবেকিস্তানের সঙ্গে বর্ডার শেয়ার করে। এখানকার ৯২ শতাংশ মানুষ মুসলিম থাকা সত্বেও তাজিকিস্তান একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ হওয়ায় এখানে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ বসবাস করতে পারেন। এখানকার মানুষ খোলামেলা স্বভাবের হয়। হাস্যকৌতুক এর মাধ্যমে মজা করা খুব পছন্দ করেন তাই যারা হাসিখুশি থাকতে পছন্দ করেন তারা তাজিকিস্তান মতো এমন একটি পছন্দের দেশ হতে পারে।

যে সমস্ত মানুষ পাহাড়ে চড়া খুব পছন্দ করে তাদের কাছে ঘুরতে যাওয়ার জন্য তাজিকিস্তান উপযুক্ত জায়গা।এই দেশের ৯০ শতাংশ এরিয়া পাহাড়ে ঘিরে থাকায় এখানে রক ক্লাইম্বিং এবং ট্রেকিং এর মত অ্যাডভেঞ্চার এর জন্য পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের লোকে এই দেশে ছুটে আসে।

এই দেশের মানুষ তাজিক এবং রাশিয়ান ভাষায় কথা বলে থাকেন এছাড়াও মানুষ ইংলিশ এবং পার্শিয়ান ভাষাতেও কথা বলে থাকেন। তাই এ দেশে ঘুরতে যাওয়া পর্যটকদের ভাষাগত দিক থেকে কোন সমস্যা হবে না।

দুশানবে্ রাজধানী হল তাজিকিস্তানের  সবচেয়ে বড় শহর এবং এদেশের রাজধানী এই দুশানবে্ শহরটি সোমবার কিংবা মানডে নামে পরিচিত। দুশানবে শহর একটা গ্রাম থেকে তৈরি সেখানে মানডে নামে একটি বাজার জনপ্রিয় ছিল, তাই এই শহরটিকে সোমবার কিংবা মানডে নামে বলা হয়ে থাকে। তাজিক ভাষার দুশানবের অর্থ হল সোমবার কিংবা মানডে।

প্রায় সব দেশেরই ছেলে এবং মেয়ে সাইকেল চালানো পছন্দ করে থাকে কিন্তু এদেশের মানুষ বিশ্বাস করেন যে সাইকেল শুধু মাত্র ছেলেদের জন্য তাই মেয়েদের সাইকেল চালাতে দেওয়া হয় না। 

তাজিকিস্তানের নোরেগবাকটি  পৃথিবীর উচ্চতম বাঁধ ছিল এই বাক প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের থেকে উঁচু এবং এটি গিনিস বুক অফ ওয়ার্ল্ড এর অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।  তাজিকিস্তানের মানুষ নাচ করা খুব পছন্দ করে। তাই এখানকার স্কুলের ছেলে মেয়েদের নাচ শেখানো হয়ে থাকে। এই দেশে ৯০০টি হ্রদ  দেখতে পাওয়া যায় এবং পৃথিবীর বাকি সব হ্রদ গুলোর তুলনায় এখানকার হ্রদে সব থেকে বেশি স্বচ্ছ জল দেখতে পাওয়া যায়। তবে পাহাড় দিয়ে ঘেরা ইস্কান্দার কুল খুব সৌন্দর্যের জন্য  পৃথিবী থেকে প্রকৃতি প্রেমিক মানুষ এই দেশে ছুটে আসে।

তাজিকিস্তানে প্রায় সাত দিন ধরে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান পালন করা হয় এবং এখানে বন্ধু-বান্ধব এবং আত্মীয়-স্বজনদের নিয়ে প্রায় সাত দিন ধরে আনন্দ করা হয়ে থাকে বিয়ের পর প্রায় প্রতিটি দেশে মানুষ দুই সপ্তাহ  হানিমুনে আনন্দ করে থাকে কিন্তু তাজিকিস্তানে বিয়ের পর স্বামী স্ত্রী ৪০ দিন ধরে হানিমুন উপভোগ করে থাকে তাই এদেশের বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রী তাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠ এক ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে তোলে।

তাজিকিস্তানের মানুষ আমিষ খাবার খেতে খুব পছন্দ করেন এর মধ্যে পোশ নামে এক ধরনের পোলাও এদের খুব জনপ্রিয় খাবার।

পুরুষের চেয়ে মহিলাদের সংখ্যা বেশি কারণ ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৭ সালে গৃহযুদ্ধের পর থেকে পুরুষের সংখ্যা কমে গেছে, দেখা যায় একজন পুরুষের একাধিক স্ত্রী রয়েছে। মহিলারা পুরুষের এই বহুগামিতা কে মেনে নিয়েছে কারণ এর  প্রতিকার কিছুই নেই। এই দেশে বহু ধর্মীয় সংস্কার পদ্ধতি মেনে চলা হয়ে থাকে। তাই এই সঙ্গে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে নারীরা। তারা প্রতিদিন শিকার হচ্ছেন বৈষম্যের। এর পাশাপাশি গৃহ নির্যাতন ও রয়েছে তাছাড়া নারীদের পড়াশোনার সুযোগের  অভাব রয়েছে।

তাজিকিস্তান জাতিসংঘ, সিআইএস, ওএসসিই, ওআইসি,ইসিও এবং সিএসটির সদস্য। দেশটি ২০০২ সাল থেকে জিডিপি ৩.৫ শতাংশ শিক্ষা খাতে খরচ করে আসছে সার্বিকভাবে শিক্ষার কোনো উন্নতি হয়নি ইউনিসেফের দেওয়াএক তথ্য মতে দরিদ্র এবং লিঙ্গ বৈষম্যের কারণে প্রতিবছর ৫ শতাংশ শিশু শিক্ষা সমাপ্ত করতে পারে না কিন্তু দেশটির ৯৯.৫ শতাংশ লোক লিখতে পড়তে পারে। তাজিকিস্তানের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের বাদাখশান  অঞ্চলের মানুষেরা তাজিক ভাষার পাশাপাশি পামির ভাষাতেও কথা বলে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.