কেন গঙ্গা নদীকে ভাগীরথী বলা হয় সেটি অনেকে কাছেই অজানা।কি আছে আর পিছনের রহস্য?

নিউজ ডেস্কঃ হিন্দুধর্ম গ্রন্থ অনুসারে গঙ্গা নদীকে খুব পবিত্র বলে মনে করা হয়।এই গঙ্গা নদীর মাহাত্ম্য মহাভারত এবং পুরানে একাধিক গ্রন্থে উল্লেখিত আছে।এছাড়াও স্কন্দপুরাণেও এই নদীর মাহাত্ম্য সম্পর্কে অনেক কথা বলা হয়েছে।এমনকি এটাও বলা হয়ে থাকে যে গঙ্গা স্নান করলে মানুষের সব পাপ ধুয়ে যায়।তাই এই গঙ্গা নদীর পবিত্রতা সম্পর্কে বিশদে কিছুই বলার নেয়।তবে বিষয় হল আমরা গঙ্গাকে ভাগীরথীও বলি কিন্তু কেন গঙ্গা নদীকে ভাগীরথী বলা হয় সেটি অনেকে কাছেই অজানা।কি আছে আর পিছনের রহস্য?

পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে প্রাচীনকালে ভগীরথ নামের এক রাজা ছিলেন।তিনি ছিলেন অত্যন্ত জ্ঞানী ও দয়ালু এবং তিনি ছিলেন সাগর রাজবংশের রাজা।এই রাজা যখন বড় হলেন তখন তিনি জানতে পারলেন যে তাঁর ৬০ হাজার পূর্বপুরুষ পাপ কাজ করায় কপিল ঋষি ক্রুদ্ধ হয়ে তাদের অভিশাপ দিয়ে তাঁর ওই ৬০ হাজার পূর্বপুরুষকে ছাই হয়ে দিয়েছিলেন।তখন  ভগীরথ  সিদ্ধান্ত নেন যে এই পূর্বপুরুষদের প্রাণ ফিরিয়ে দেওয়ার।তখন রাজা ভগীরথ গুরু তীর্থলার পরামর্শ মেনে কঠোর তপস্যা শুরু করেন  ব্রহ্মা ও বিষ্ণুকে তুষ্ট করার জন্য।এই তপস্যা করার জন্য তিনি গভীর জঙ্গলে চলে যান এবং তাঁর রাজ্য ভার দিয়ে যান মন্ত্রীর হাতে।তারপর শুরু হয় তাঁর তপস্যা এই কঠোর তপস্যায় তুষ্ট হয়ে ব্রহ্মা ও বিষ্ণু তাঁকে দেখা দিয়ে বর প্রার্থনা করতে বলেন।তখন  ভগীরথ প্রার্থনা করেন ব্রহ্মা ও বিষ্ণুর কাছে যে তাঁর ছাই হয়ে যাওয়া ৬০ হাজার পূর্বপুরুষের মুক্তির। তখন  ব্রহ্মা ও বিষ্ণু তাঁকে বলেন যে একমাত্র দেবী গঙ্গা তাঁদের মুক্তি দিতে পারেন।

ভগীরথ এই কথা শুনে তখন গঙ্গার তপস্যা শুরু করেন।ভগীরথের এই তপস্যায় তুষ্ট হয়ে দেবী গঙ্গা তাঁকে দর্শন দিলে দেবী গঙ্গাকে পৃথিবীতে নেমে আসার জন্য তিনি প্রার্থনা করেন।তখন দেবী গঙ্গা জানান যে তিনি পৃথিবীতে নেমে আসতে পারেন তবে তাঁর প্রচণ্ড স্রোতের কারনে এই পৃথিবী বন্যায় ভেসে যাবে।এই শুনে ভগীরথ তাঁর সাহায্যের জন্য মহাদেবের কাছে গিয়ে প্রার্থনা করেন। তখন মহাদেব সব বিষয়টি জানা পর জানান যে গঙ্গাকে তিনি নিজের জটায় আবদ্ধ করে ফেলবেন এবং সেখান থেকে গঙ্গাকে ধীর স্রোতে পৃথিবীতে পাঠাবেন।যার ফলে পৃথিবী সুজলা সুফলা হয়ে উঠবে গঙ্গার পূণ্যস্রোতে।তারপর গঙ্গা মহাদেবের এই প্রস্তাবে সম্মত হয়ে তাঁর জটায় অবস্থান করেন এবং সেখান থেকে পৃথিবীতে নেমে আসেন নিয়ন্ত্রিত স্রোত নিয়ে।তারপরই ভগীরথের ওই ৬০ হাজার পূর্বপুরুষ  গঙ্গার স্পর্শে মুক্তি পান।যেহেতু গঙ্গাকে পৃথিবীতে নিয়ে এসেছিলেন ভগীরথ এই জন্য গঙ্গা নদীর আরও একটি নাম হয় ভাগীরথী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.