পিরিয়ড-এর পেট ব্যথা- পিরিয়ডের সময় পেতে ব্যাথা থেকে মুক্তি পেতে এক কাপ জলের মধ্যে একটা আদা কুচিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিন ৫ মিনিট ধরে

নিউজ ডেস্কঃ গ্যাসের কারণে হোক বা অন্য কোন কারনে পেট ব্যথা সব সমস্যা উপশম রয়েছে আপনাদের ঘরেই।এক এক ধরনের পেটে ব্যাথার জন্য যেমন এক এক রকম ওষুধ আছে ঠিক তেমনই  ঘরোয়া পদ্ধতিতেও রয়েছে আলাদা টোটকা।তাই পেটে ব্যাথা হলে ওষুধ খাওয়ার বদলে ঘরোয়া টোটকা ব্যবহার করুন।তাহলে জেনে নিন কোন ব্যাথার জন্য কোন ঘরোয়া টোটকা ব্যবহার করবেন।

১) পিরিয়ড-এর পেট ব্যথা- পিরিয়ডের সময় পেতে ব্যাথা থেকে মুক্তি পেতে এক কাপ জলের মধ্যে একটা আদা কুচিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিন ৫ মিনিট ধরে।তারপর এটি ভালো করে ফুটিয়ে নেওয়া পর এর মধ্যে মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে নিন।এই জলটি পিরিয়ডের সময় দিনে তিনবার পান করুন।এতে দেখবেন উপকার পাবেন। মাসিকজনিত পেট ব্যথা কমাতে আদা বিশেষভাবে কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

২) অরুচি, হজম সংক্রান্ত পেট ব্যথা- হাফ চামচ সাধারণ নুন নিয়ে তার মধ্যে বিট নুনের গুঁড়ো, সামান্য একটু আদা গুঁড়ো, গোল মরিচ গুঁড়ো এবং হিং মিশিয়ে নিন ভাল করে। এটি দিনে তিনবার খান। এতে হজম সংক্রান্ত পেট ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

৩)গ্যাসের কারণে হওয়া পেট ব্যথা- গ্যাস সংক্রান্ত পেট ব্যথা দূর করতে হিং এর জুড়ি মেলা ভার।কারন এর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিপাসমোডিক এবং অ্যান্টিফ্লাটিউলেন্ট উপাদান।তাই গ্যাসের কারণে পেট ব্যথা হলে এক গ্লাস উষ্ণ গরম জলের মধ্যে একটু  হিং এবং একটু নুন ভালো করে মিশিয়ে নিন।তারপর ওই জল দিনে দুই থেকে তিনবার পান করুন।এতে পেট ব্যথা দূর হওয়ার পাশাপাশি পেটের গ্যাস কমে যাবে।

৪) ডায়রিয়া জনিত পেট ব্যথা- ডায়রিয়া জনিত পেট ব্যথা দূর করতে এক কাপ ডালিমের রস খান।এতে পেট ব্যথা দূর হওয়ার সাথে সাথে  ডায়ারিয়া বন্ধ হয়ে যাবে।এটি দিনে দু’বার পান করুন।এছাড়াও এক গ্লাস বাটার মিল্কের মধ্যে জিরে গুঁড়ো মিশিয়ে নিয়ে পান করুন।এতেও উপকার পাবেন এই সমস্যায়। 

৫) গ্যাসে জ্বালা এবং গ্যাস সংক্রান্ত পেট ব্যথা- আগেরদিন রাতে এক গ্লাস জলের মধ্যে ২০ টি কালো কিসমিস ভিজিয়ে রাখে দিন।তারপরের দিন সকালে খালি পেটে এটি পান করুন।এটি এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে সহায়তা করবে।

তবে যদি দেখেন যে এই ঘরোয়া টোটকার দ্বারা কমছে না তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.