গ্রিন টি তে থাকে  ক্যাটেকিন নামক এক অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট যা হৃদ্‌রোগ ও ক্যানসারের মতো বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে

নিউজ ডেস্ক: সকাল বেলায় এক কাপ চা ছাড়া যেন দিনটি শুরু হয় না বেশিরভাগ মানুষেরই।কিন্তু বর্তমান দিনে মানুষ স্বাস্থ্যসচেতন হয়ে উঠেছে।তাই চা খাওয়ার ক্ষেত্রেও এই স্বাস্থ্যসচেতনতা দেখা যায়।লাল চা নাকি গ্রিন টি? এই দ্বন্দ্বের মধ্যে পড়ে বহু মানুষ। তারা বুঝতে পারে না যে কোনধরনের চা গরমে খাওয়া উচিত?  

গ্রিন টি: গ্রিন টি তে থাকে  ক্যাটেকিন নামক এক অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট যা হৃদ্‌রোগ ও ক্যানসারের মতো বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ করতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও এই চায়ে মধ্যে ক্যাফিন খুবই কম পরিমাণ  থাকে  যা স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপযোগী। বিশেষজ্ঞদের মতে, দেহে অম্লত্বের পরিমাণ কমাতে, বিপাক হার বাড়াতে ও দেহ পরিশুদ্ধ করতে বিশেষভাবে সাহায্য করে গ্রিন টি। লাল চায়ের তুলনায় গ্রিন টি কম জারিত হয়।

লাল চা: লাল চায়ের মধ্যে ক্যাটেকিন নামক অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টটির পরিমাণ গ্রিন টি-র তুলনায় অপেক্ষাকৃত কম থাকে। তবে অন্যান্য অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট ভরপুর পরিমাণে থাকে এই চায়ে।এছাড়াও  দেহে জলের ঘাটতি পূরণ করতেও সহায়তা করে  লাল চা।

সুতরাং বলা যায় যে এই  দু’ধরনের চায়ের মধ্যেই রয়েছে একাধিক  গুণাবলী।তাই   পরিমাণ মতো যদি চা পান করেন তাহলে এই দু’ধরনের চায়ের থেকে পাওয়া  যাবে উপকার। তবে সবার স্বাদ ও স্বাস্থ্য সমান নয়।এইজন্য স্বাস্থ্য ও স্বাদের দিকে নজর দিয়ে বেছে নিতে হবে যেকোনও এক রকমের চা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.