মোবাইল এর সংখ্যা বেশি জনসংখ্যার থেকে। কোন দেশে জানেন?

নিউজ ডেস্ক:- কোন দেশের জনসংখ্যার থেকেও  মোবাইল এর সংখ্যা বেশি জানেন? দক্ষিণ আমেরিকার উত্তর পশ্চিম অংশে অবস্থিত ইকুয়েডর দেশের রাজধানী হল কুইতো। ইকুয়েডর দেশের সরকারি নাম ইকুয়েডর প্রজাতন্ত্র। এই দেশটি প্রশান্ত মহাসাগরের উপকূলে অবস্থিত এবং এর মোট জনসংখ্যা 17,643,054।

ইকুয়েডর দেশ সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য হলো

1. বিশ্বের মধ্যে সব থেকে বেশি কযলা উৎপাদন এই দেশে হয় এবং এটি আকারে অনেক বড় হয়। কলা উৎপাদনে এই দেশ প্রথম স্থান দখল করে আছে।

2. এই দেশের আইন অনুযায়ী প্রকৃতিকে নিজস্ব প্রোপার্টি হিসেবে কেউ ব্যবহার করতে পারে না। এই দেশের মানুষ দের গাছ লাগানোর কথা বলতে হয়না। তারা নিজেরাই নানা ধরনের বহু সংখ্যক গাছপালা প্রতিবছর লাগিয়ে থাকে।

4. পুরো পৃথিবীর মধ্যে এই দেশটি সূর্যের খুব কাছে অর্থাৎ সূর্য থেকে  এই দেশটির দূরত্ব সবথেকে কম।

5. ইকুয়েডর দেশের নাম ভূমধ্য রেখার নাম অনুযায়ী রাখা হয়েছে। এটি পৃথিবীর একমাত্র দেশ যার  ভৌগোলিক বিশেষত্বের উপর নামকরণ করা হয়েছে।

6. 1851 সালে এই দেশে  সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করা হয়েছিল। এখানে কেউ কোন ভাবে কারো গোলাম হতে পারে না।

7. এইদেশে 1906 সাল থেকেই কাউকে শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড  দেওয়া সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়েছিল। বলা হয় 1906 সালের পর থেকে এই দেশে কাউকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়নি। এখানে বেশিরভাগ দোষী কে  আজীবন কারাবাস এর শাস্তি দেওয়া হয়।

8. এই দেশের জনসংখ্যার থেকেও  মোবাইল এর সংখ্যা বেশি। এই দেশের প্রায় তিন কোটি বেশি সেলফোন রয়েছে। বলা হয় এই দেশের মানুষ না খেয়ে থাকতে পারবে কিন্তু মোবাইল ছাড়া তাদের বেঁচে থাকা মুশকিল।

9. এ দেশের মানুষেরা নিজেদের কাজেই ব্যস্ত থাকে। তারা বিনা কারণে অন্য কোনো ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলতে বা সময় কাটাতে বেশি পছন্দ করেনা।

10. এটি বিশ্বের একমাত্র দেশ যেখানে রাইটস অফ নেচার নিয়মটি লাগু করা হয়েছে। এই নিয়ম অনুযায়ী আর পাঁচজন সাধারণ মানুষের মতো প্রকৃতিরও নিজস্ব কিছু অধিকার রয়েছে।

11. এখানে যদি কোন ব্যক্তি জায়গা কিনে তার ওপর নিজস্ব বাড়ি বানাতে চায় এবং সেখানে যদি কোন গাছ থাকে সেই গাছ কাটার জন্য তাকে সরকারের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হয়।

12. এদেশে 74 শতাংশ মানুষ রোমান ক্যাথলিক। এই দেশের মানুষেরা খুব ভগবান বিশ্বাসী হয়। তারা মনে করে যে, যে কাজ তারা করতে পারবে না তা ভগবান করে দেবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.