কম্পিউটার স্ক্রিনের আমাদের যেসমস্ত লেখাগুলি দেখি সেগুলো বড় করে নিয়ে পড়ুন তাতে আমাদের চোখের পক্ষে ভাল কারণ ছোট ছোট লেখা আমাদের চোখের উপর চাপ সৃষ্টি করে

নিউজ ডেস্কঃ বর্তমান দিনে মানুষদেরকে কাজের সূত্রে দীর্ঘসময় ধরে কম্পিউটারের সামনে থাকতে হয়।আর এতে আমাদের চোখের ওপর মারাত্মক চাপ পড়ে যাতে আমাদের দৃষ্টিশক্তির ক্ষতি ছাড়াও নানা শারীরিক সমস্যা হতে পারে। কিন্তু আমাদের কাজ তো করতে হবে এবং তার পাশাপাশি আমাদের নিজেদের শারীরিক দিকের প্রতিও সচেতন হতে হবে।তাই কম্পিউটার আমাদের দৃষ্টিশক্তির উপর সবথেকে বেশী প্রভাব ফেলে।সেক্ষেত্রে আমাদের চোখের এই সমস্যা এড়ানোর জন্য কিছু সমাধান মেনে চলতে হবে তাই জেনে নিন সেইসব কিছু নিয়ম যা  আমাদের চোখ ভালো রাখতে সাহায্য করবে।

) কম্পিউটার স্ক্রিনের আমাদের যেসমস্ত লেখাগুলি দেখি সেগুলো বড় করে নিয়ে পড়ুন তাতে আমাদের চোখের পক্ষে ভাল কারণ ছোট ছোট লেখা আমাদের চোখের উপর চাপ সৃষ্টি করে।

) কম্পিউটারে কাজ করার সময় মাথায় রাখুন অন্তত ১৫-২০ মিনিট পর পর বিশ্রাম দিন চোখকে।কারন এক টানা স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকলে চোখের মাংসপেশীতে চাপ পড়ে।যেমন অন্য পেশিগুলো সবসময় কাজে ব্যস্ত থাকলে গরম হয়ে যায় ঠিক তেমনই আমাদের চোখের উপরও এইরকম প্রভাব পরে।তাই একটু বিরতি ও দূরের কিছু পর্যবেক্ষণ করা হলে চোখের এ অবস্থা থেকে কিছুটা বিরতি হয়।

)  কম্পিউটারে কাজের সময় বেশিবার চোখের পাতা ফেলুন।কারন আমরা সাধারণত স্ক্রিনের সামনে  চোখের পাতা কম ফেলি যারফলে আমাদের চোখের মনি শুকিয়ে যায়।যা আমাদের চোখের পক্ষে ক্ষতিকারক।তাই চোখের মনির শুকিয়ে যাওয়া রোধ করতে বারবার চোখের পাতা ফেলার অভ্যাস করুন।

 )কম্পিউটারে থেকে যতটা সম্ভব দূরে বসে কাজ করুন তা আমাদের চোখ পক্ষে ভালো।আর এই দূরত্বটা বুঝবেন যদি আপনি চেয়ারে হেলান দিয়ে বসে হাত বাড়িয়ে মনিটর স্পর্শ করতে পারেন তাহলে বুঝবেন  যে আপনি সঠিক অবস্থানে রয়েছেন।

চোখের স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে হলে তার আগে খাওয়ারে দিকে আমাদের একটু সচেতন হতে হবে।কারন আমাদের চোখের জন্য পুষ্টিকর খাবার খাওয়ায় উচিত।এছাড়াও যেসব খাবারে ভিটামিন এ, সি, ই ও জিংক ইত্যাদি উপাদান রয়েছে সেগুলো বেশি করে খেতে হবে কারন শরীরের এনার্জির বড় অংশ ব্যবহার করে চক্ষুগোলক।  এছাড়া ডাক্তারের পরামর্শে ভিটামিন ওষুধও ব্যবহার করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.