মানুষ জামা কাপর পরেনা, পুরো নগ্ন হয়েই দিন কাটায়? ইংল্যান্ডের এই গ্রামের নাম জানেন?

নিউজ ডেস্ক- বর্তমানে ২০২১ সালে দাঁড়িয়ে কোন গ্রাম উলঙ্গ রয়েছে বলে শোনা যায়নি। যখন মানুষেরা উলঙ্গ ছিল সেই সময় কালটা চলছিল আদিম মানবের যুগ। কিন্তু বর্তমানে এমন একটি গ্রাম রয়েছে যেখানে সকল গ্রামবাসীর আর্থিক দিক থেকে সচ্ছল থাকলেও জামাকাপড় বড়ই অপছন্দ তাদের। এই গোষ্ঠী  সম্প্রদায়ের বাসিন্দারা বসবাস করে  ব্রিটেনের হার্টফোর্ডশায়ারের স্পিলপ্লাজ নামের একটি গ্রামে।

জানা গিয়েছে কোন এক অজ্ঞাত কারণে ১৯২৯ সালে লন্ডন ছেড়ে চার্লস ম্যাকস্কি এবং তার স্ত্রী ডোরথি এই অঞ্চলে এসে বসবাস শুরু করেন। তারা এই জায়গাটার নাম দেয় স্পিলপ্লাজ যার সহজ ভাবে আক্ষরিক অর্থ খেলার জায়গা।  সেই সময় দম্পতি দুজনে চলে আসলে সেখানে একাকী বসবাস করত তারা। তবে পরবর্তীতে দম্পতির বাড়ির আত্মীয়-স্বজনরা তাদের দেখতে আসলে কিছু বছর পরে পূর্ণ হয়ে যার জনবসতিতে। জানা যায় বর্তমানে পরিসংখ্যান অনুযায়ী ওই গ্রামে  জনবসতি রয়েছে ৫০টি।

সেখানকার মানুষেরা নিত্যপ্রয়োজনীয় ইলেকট্রিক, সোনার চেন, দামি ঘড়ি সহ প্রয়োজনীয় একাধিক জিনিস ব্যবহার করলেও জামাকাপড় পরতে অনীহা দেখায় তারা। তবে উলঙ্গ অবস্থায় নিজের গ্ৰাম পর্যন্তই সীমাবদ্ধ থাকে। কর্মসূত্রে বাইরে যেতে গেলে বা কোন লোকালে জামার ভদ্র পোশাক পরে বেরোন। গ্রামের জলের ব্যবহার প্রচলিত থাকলেও কেনার কোন ব্যক্তিক্তরাই নেই। কারণ ওই গ্রামে জমি কিনতে গেলে সেখানকার গ্রামবাসীদের নিয়ম-নীতি মেনে চলতে হবে অর্থাৎ সেই উলঙ্গ সম্প্রদায়ের মানুষের সঙ্গে উলঙ্গ ভাবে থাকতে হবে। তাহলেই সেইখানে পাওয়া যাবে জমি।  

Leave a Reply

Your email address will not be published.