ত্বকে পুষ্টি জোগান দেয়। গুঁড়ের অসাধারন ১০ টি কাজ

নিউজ ডেস্কঃ রূপচর্চার জন্য আমরা কত কিছুই না করে থাকি।সুন্দর দাগহীন ত্বক থেকে শুরু করে ঘন চুল এসব কিছুর পেছনে প্রতিমাসে বহু টাকা খরচ ও করি আমরা। কিন্তু, জানেন কি রূপচর্চার জন্য কৃত্রিম এই সমস্ত প্রোডাক্ট এর পেছনে হাজার হাজার টাকা খরচ না করে ডায়েটের সামান্য চেঞ্জই এনে দিতে পারে আপনার মনের মত রেজাল্ট?

আজ আপনাদের জানাবো এরকমই একটি উপাদান এর কথা।যা প্রায়  আমাদের সকলের বাড়িতেই  সব সময় পাওয়া যায়।গুড়ের কথা বলা হচ্ছে! এই গুড় যে স্বাস্থ্যের জন্য কতটা উপকারী তা হয়তো অনেকেই জানেন কিন্তু জানেন কি ত্বকের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানেও গুড় অনবদ্য কাজ করে। আসুন জেনে নিই নি রোজকার ডায়েটে গুড় কিভাবে পাল্টে ফেলতে পারে আমাদের ত্বক ।

১।ব্রণের সমস্যা সমাধান

আমরা অনেকেই ব্রণের সমস্যায় ভুগি। এই সমস্যা আপনার ও থাকলে প্রতিদিন অল্প পরিমাণে গুড় খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন ব্রন ও একনে যেমন দূর হয়েছে তেমনি ত্বক ও হয়ে উঠেছে উজ্জ্বল ও দাগ বিহীন ।

২। ত্বকে পুষ্টি জোগান

 গুড়ের মধ্যে থাকা বিভিন্ন খনিজ ও ভিটামিন গুলি শরীরের স্বাস্থ্যের জন্য যেমন উপকারী তেমনি উপকারী আমাদের ত্বকের জন্য ও ।গুড়ে আছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ভিটামিন ফলে নিয়মিত গুড় গ্রহণ করলে তা ত্বকে পুষ্টির যোগান দেয় এবং মুখ হয়ে ওঠে উজ্জ্বল ও ফিরে আসে ত্বকের আদ্রতা ।

৩) বলিরেখা দূর করা

গুড় যে কেবলমাত্র ব্রন দূর করে বা ত্বকে পুষ্টি যোগায় তাই নয় সেই সাথে দূর করে বলিরেখাও ।গুড় এ আছে নানা ধরনের অ্যান্টি-এইজিং খনিজ যা ত্বকের বলিরেখা দূর করে ।দৈনন্দিন কাজের চাপে আর দূষণের ফলে বয়সের আগেই অনেকের মুখে দেখা যায় বলিরেখা ।এক্ষেত্রে অল্প পরিমাণে তিলের তেল এর সাথে গুড় মিশিয়ে নিয়মিত মুখে মাখলে বলিরেখার হাত থেকে বাঁচা যায় ।

৪) কালচে ছোপ দূর করা

সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মির প্রভাবে অনেকেরই মুখে কালচে ছোপ ও য্যান দেখা যায় ।এক্ষেত্রে নিয়মিত ফেসপ্যাক হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন গুড় ।15 মিনিট মুখে মেখে আস্তে আস্তে জল দিয়ে ঘষে তা ধুয়ে ফেলুন দেখবেন কয়েক দিনের মধ্যেই মুখের কালচে ভাব হয়ে যাবে গায়েব।

5) ত্বক নরম রাখা

গুড় এ থাকা গ্লাইকোলিক এসিড ত্বক নরম রাখতে অসাধারণ কাজ করে ।বয়সের সাথে সাথে ত্বক হয়ে ওঠে রুক্ষ ও শুষ্ক ।এক্ষেত্রে পুনরায় নরম ত্বক ফিরে পেতে চাইলে গুড়ের সাথে একটু মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে মুখে বেশ কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখুন ।তারপর জল দিয়ে হালকা করে ম্যাসাজ করে তুলে ফেলুন সেই মিশ্রণ। নিয়মিত এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে ত্বকের পরিবর্তন বুঝতে পারবেন নিজেই ।

6) দাগছোপ দূর করে

আপনার ত্বকে যদি দাগ ছোপ এর সমস্যা থাকে তবে গুড়ের সাথে লেবুর রস  টমেটোর রস ও অল্প পরিমাণে হলুদ মিশিয়ে প্রতিদিন মুখে লাগালে মুখের দাগ দূর হয়ে যায় ।আর সেইসাথে দূর হবে যে কোনো রকম কালো দাগ।

এতক্ষণ তো গেল শুধু ত্বকের যত্নে গুড়ের অবদান এর কথাই।তাই বলে ভাববেন না গুড়ের উপকার খালি এইটুকুতেই সীমিত ।চুলের যত্নে ও গুড়  কিন্তু ম্যাজিকের মতোই কাজ করে ।

1)চুল করে তোলে ঘন ও উজ্জ্বল

দূষণের কারণে ও অযত্নের ফলে অনেক সময়ই চুল হয়ে ওঠে শুষ্ক এবং হারিয়ে ফেলে তার স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা ।এক্ষেত্রে সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার গুড়, মুলতানি মাটি ও দই একসাথে ভালো ভাবে মিশিয়ে তৈরি করে ফেলুন একটি   প্যাক ।ভালো করে নিয়মিত চুলে এটি লাগালে দেখতে পাবেন পরিবর্তন কিছুদিনের মধ্যেই  ।

2) চুল নরম করে

স্ট্রেটনিং ,স্মুদর্নিং জাতীয় ট্রিটমেন্টের পরে চুল অনেক সময় হয়ে ওঠে শক্ত । আপনার ও যদি এরকম সমস্যা হয়ে থাকে তবে গুড়ের সাথে দই মিশিয়ে চুলে কুড়ি মিনিট লাগিয়ে রাখুন ।তারপর ভালো করে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে পেলেই   দেখবেন চুল হয়ে গেছে  নরম ।

3) চুলের গোড়া মজবুত করে

চুলের গোড়া মজবুত করে চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ করতে ম্যাজিকের মতো কাজ করে   গুড়।গুড়ের তৈরি হেয়ার মাস্ক এক্ষেত্রে সাহায্য করবে অবশ্যই ।তবে, হেয়ার মাস্ক ব্যবহার না করে রোজকার ডায়েটের যদি রাখেন তাহলেও কিন্তু গুড়ের সুফল আপনি বুঝতে পারবেন।

খুশকি দূর করে

গুড়ে থাকা ভিটামিন সি খুশকি দূর করতে সাহায্য করে ।এটি স্ক্যাল্পের ত্বককে করে তোলে আদ্র ফলে সহজে খুশকি হয় না

Leave a Reply

Your email address will not be published.