কোন ইট ভাল দেখলে কিভাবে বুঝতে পারবেন?

নিউজ ডেস্ক  –  সাধারণ মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় কাজের জন্য অনেক জিনিসের প্রয়োজন হয়। যার মধ্যে অন্যতম হলো ইট। তবে ইটের কথা উঠলেই বাড়ি তৈরীর কথা সর্বপ্রথম মনে আসে। কিন্তু অনেকেই বুঝতে পারেনা কোন ইট বেশি ভালো এবং কোনটি খারাপ। আজকের প্রতিবেদনে  ইটের সম্বন্ধে কিছু বিশেষ তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে।  

ইটের বিবরণ দিতে গেলে প্রথমেই বলতে হবে আমাদের দেশে সাধারণত  ৯.৫” x ৪.৫” x ২.৭৫” সাইজেরইট, যামিলিমিটারে ( 238 x 114 x 70 ) বাংলা ইট ব্যাবহার হয়ে থাকে, এইমান পিডাবলুডিয়ের সিডিউল অনুযায়ী।মসলাসহ ১০” x ৫” x ৩” ( 250 x 125 x 76)। 

আবার গুণমানের দিক থেকে ইট ৫ প্রকারের হয়। যেমন – ১ম শ্রেণীর ইট, ২য় শ্রেণীর ইট, ৩য় শ্রেণীর ইট, ঝামা ইট ও পিকেট ইট। এছাড়াও বেশ কিছু উদাহরণ রয়েছে যার মাধ্যমে কোন ইট  ভালো এবং কোনটি খারাপ তা যাচাই করা যায়। যেমন – 

১)  ভালো ইটের রং গাঢ় লাল তাম্র রংয়ের হবে এবং রংয়ের  সাম্যতা থাকবে।

২) অপর একটি ইট দিয়ে আঘাত করলে ধাতব শব্দ হবে। এছাড়াও নখ বা ছুড়ি দ্বারা স্বাভাবিক আচর কাটলে কোনো দাগ পরবে না।

ইটের আকারে সাম্যতা বজায় থাকবে এবং পৃষ্ঠসমূহ সমান্তরাল কিন্তু অমসৃন থাকবে।

দুইটি ইটকে টি আকৃতিতে ধরে ২ মিটার উচু থেকে ফেলে দিলে না ভাঙলে বুঝতে হবে ইটটি ভালো।

ইট ভেঙে টুকরো করা হলে টুকরো গুলোর রং দেখতে একই রকম হলে বুঝতে হবে ইটটি ভালো।

৩) ২৪ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখলে ইটটি তার নিজস্ব ওজনের ১/৬ অংশের বেশি পানি শোষণ করবে না।

উপরোক্ত ৬ টি পরীক্ষা ইট কেনার সময়ই যাচাই করে ভালো ইট চিনে নিতে পারেন। 

৪) ইট এমন একাটি উপাদান, যা বাড়ী নির্মান করার প্রথমেই আপনার মাথায় আসে । কিন্তু সমস্যা হচ্ছে ইট সম্পর্কে তেমন কোন আইডিইয়া থাকেনা। ইট কেনার আগে অবশ্যই ইট সম্পর্কে খুবই ভালো ভাবে জেনে নিতে হবে।

৫) একটি পাত্রে যদি ইটকে ভিজানো হয় এবং তা বুদবুদ সহ কারে বেশ পরিমাণ জল শোষণ করে নেয় এবং পানি ঘোলাটে হয়, তবে এটি ভালো ইট নয়।

৬) ইটের ধার ও কোণ গুলো সুক্ষ ও তীক্ষণো হলে বুঝতে হবে এটি ভালো ইট।

৭) ইটের পৃষ্ট মসৃন ও সমতল হলে এটি ভালো ইট।

৮) ইটের মাপ আদর্শ থাকবে, যেমনঃ (৯.৫” x ৪.৫” x ২.৭৫”)

৯) ইটের ওজন ৩.৫ কেজির বেশী হবে না।

১০) ভালো ইট জলে ভেজালে আয়তনে পরিবর্তন হয় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.