ফেসওয়াশের বদলে কিভাবে ব্যবহার করুন দুধ, দই?

নিউজ ডেস্কঃ ত্বকে ব্যবহারের জন্য সবচেয়ে উপকারী উপাদান হল ঘরোয়া উপাদান।এতে ত্বকে কোনরকম ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা না থাকার পাশাপাশি ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে।কিন্তু বাইরের প্রোডাক্ট যেমন- ফেসওয়াশ ব্যবহার করলে ত্বকের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।তাই ফেসওয়াশ ব্যবহার করতে হলে বাইরের প্রোডাক্ট দিয়ে নয় ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি করে ব্যবহার করুন।খুবই সহজ পদ্ধতিতে ঘরে বানিয়ে ফেলতে পারবেন এই ফেসওয়াশ। এটি আপনাদের ত্বককে মসৃণ, কোমল এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করবে। জেনে নিন ঘরোয়া উপায়ে ফেসওয়াশ তৈরি করার পদ্ধতি–

১। দুধ: ক্লিনজার হিসেবে দুধের জুড়ি মেলা।তাই প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে  ঠান্ডা দুধে তুলার প্যাড বা নরম কাপড় ভিজিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে নিন।দুধের সাথে আপনারা কিছুটা মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন। যেকোনো ত্বকের প্রকৃতি হোক না কেন ক্লিনজার হিসেবে দুধ ব্যবহার করতে পারবেন আপনারা।

২। ওটমিল, দই, মধু: একটি পাত্রে ওটমিল, দই এবং মধু এই তিনটি উপকরন নিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন।এরপর ওই মিশ্রণটি ভালো  মুখে, গলায় এবং ঘাড়ে লাগিয়ে রেখে দিন যতক্ষণ না শুকিয়ে যাচ্ছে। শুকিয়ে গেলে  ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলে টোনার ও ময়েশ্চারাইজার লাগান। 

৩। দই আর শসার মিশ্রণ:একটা শসা নিয়ে ভালো করে কুচি করে নিন তারপর তাতে পরিমাণমতো দই দিয়ে ভালো কর  মিশিয়ে নিন।তারপর ওই মিশ্রণটি ভালো করে মুখে ও গলায় লাগিয়ে রেখে দিন যতক্ষণ না শুকিয়ে যাচ্ছে। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলে টোনার ও ময়েশ্চারাইজার লাগান। এটি বয়সের ছাপ ও পিগমেন্টেশন দূর করতে সাহায্য করবে।এই প্যাকটি একদিন অন্তর অন্তর ব্যবহার করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.