ব্লাড সুগার এবং কোলেস্টেরল দুটোই নিয়ন্ত্রণে থাকে। খেজুরের অসাধারন কিছু উপকারিতা

নিউজ ডেস্ক  –   খেজুর স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত ভালো একটি মিষ্টি ফল। অনেকে মিষ্টির বিকল্প হিসেবে খেজুর ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু যাদের ডায়াবেটিস বা বহুমূত্র রোগের সমস্যা রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে কি খেজুর প্রযোজ্য! অনেক রোগীদের এই প্রশ্ন থাকে। আবার অনেকে মনে করেন ডায়াবেটিস রয়েছে মানেই খেজুর খাওয়া বারণ। যদিও এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। 

বিশেষজ্ঞদের মতে ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য মিষ্টি জাতীয় খাবার ক্ষতিকর বলা যায় কিন্তু খেজুর খেলে কোন ক্ষতি হয় না। যে সকল ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীরা প্রতিনিয়ত একটি নিয়ম মাফিক খাদ্য তালিকা অনুসরণ করেন তাদের ক্ষেত্রে দিনে ২-৩টে  খেজুর খাওয়ার অনুমতি থাকে। তবে কোনো খাবার না খেয়ে তার বদলে পেট ভোরে খেজুর খাওয়া ঠিক নয়।  

খেজুর ভরপুর মিষ্টি ও সুস্বাদু মেরু ফল। এই খেজুরের মধ্যে কার্যত ফাইবার ,খনিজ ও ভিটামিন থাকে। তাই এটা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত উপযোগী।  এতে ব্লাড সুগার বৃদ্ধি পায় না এমনকি কোলেস্ট্রলও সেরকম বৃদ্ধি পায় না। 

খেজুরে শরীর সুস্থ থাকে নাকি অসুস্থ হয়ে যায় সে কারণে একদল চিকিৎসক একটি পরীক্ষা করেছেন দশজন মানুষের উপর। তাদের সকলকে সপ্তাহে নিয়মিত করে ১০০ গ্রাম খেজুর খাওয়ানো হতো। এরকম করে প্রায় চার সপ্তাহ চলেছে। পরবর্তীতে যখন তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে দেখা গিয়েছে ব্লাড সুগার এবং কোলেস্টেরল দুটোই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।  

অন্যদিকে আবার যারা ডায়াবেটিস রোগী হওয়া সত্বেও নিয়মিত খাবার খান না তাদের ক্ষেত্রে খেজুর না খাওয়াই ভালো। এক্ষেত্রে বেশি ভালো হয় ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published.