পৃথিবীর কোন দেশের স্কুলে কনডম ভেন্ডিং মেশিন রয়েছে জানেন?

নিউজ ডেস্ক :- পৃথিবীতে কোন দেশে জন্মহার সবথেকে কম জানেন? পশ্চিম ইউরোপে অবস্থিত একটি দেশ হল ফ্রান্স। এই দেশকে সিটি অফ গ্লাসও বলা হয়। ফ্রান্স সাধারণত ফ্যাশন কান্ট্রি হিসেবে  চর্চিত । ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের অবস্থিত আইফেল টাওয়ার পুরো বিশ্বে তার সুদর্শনাতার জন্য পরিচিত। শুধুমাত্র আইফেল টাওয়ার দেখার জন্য প্রতিবছর  বহু মানুষ ফ্রান্সে ঘুরতে যান।

ফ্রান্সের সম্পর্কে কিছু অদ্ভুত ও অজানা তথ্য :

1. মোস্ট এক্সপেন্সিভ সিটি :-

      সিঙ্গাপুরের পরে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের মোস্ট এক্সপেন্সিভ শহর গুলির মধ্যে একটি। রোমান সাম্রাজ্যের সময়ে এর নাম ছিল লুটেশিয়া। 1852 খ্রিস্টাব্দে লুটেশিয়ার পরিবর্তে এর নাম প্যারিস করা হয়। 100 / স্কয়ার কিমি জুড়ে এই সিটিটি অবস্থিত এবং  31 লক্ষ 40 হাজার মানুষ এখানে বসবাস করে।

  2. বার্থ রেট সবথেকে কম:-

       পুরো বিশ্বে তুলনায় ফ্রান্সে বার্থ রেট অনেক কম। যদি কোনো শিশুকে সঠিকভাবে মানুষ করতে পারে তাহলে সেই শিশুর পরিবার কে মেডেল দিয়ে সম্মানিত করা হয়।

  3. মৃত ব্যক্তিকে বিবাহ করা বৈধ-

     ফ্রান্সের এক অদ্ভুত নিয়ম হলো এখানে যে কোন মৃত ব্যক্তিকে বিবাহ করা যায়। যদি কারো প্রেমিক বা প্রেমিকা মারা যায় তাহলে সেই মৃত প্রেমিক বা প্রেমিকাকে বিয়ে করতে পারেন। ফ্রান্স  বাসিন্দারা সাধারণত এটি করে থাকেন সম্পত্তির জন্য যাতে সেই মৃত মানুষটির সম্পত্তি সরকারের অধীনে না চলে যায়।

   4. মোস্ট ডিপ্রেসড কান্ট্রি-

     ফ্রান্সের জনগণদের পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি ডিপ্রেসড থাকা মানুষ বলে মনে করা হয়। এখানে প্রতি 5 জনের মধ্যে একজন ডিপ্রেশনের শিকার।

5. স্কুলের সেক্স এডুকেশন এর ব্যবস্থা-

    এখানে মাধ্যমিকে অংক ও বিজ্ঞানের সাথে সেক্স এডুকেশন ও দেওয়া হয়, যাতে পরবর্তীতে সেক্স  বিষয়ে কোন অসুবিধা না হয়। এর জন্য প্রায় 90%  স্কুলে প্রতিটি স্কুলে কনডম ভেন্ডিং কনডম লাগানো আছে।

6. ফ্রান্সে সর্বপ্রথম 1995 সালে পেন্সিলের আবিষ্কার হয়।

7. ফ্রান্সের ভাস্কর্য স্ট্যাচু অফ লিবার্টি ফ্রান্স আমেরিকাকে উপহার দিয়েছিল।

  8. ফ্রান্সের একজন ডিজাইনার লুইস রেয়ারড  1946 সালে সর্বপ্রথম বিকিনি তৈরি করে।

  9. কুকুর ও বাদর  কামড়ের ফলে এক প্রকার রোগ জলাতঙ্ক হয় এই রোগ প্রতিরোধের টিকা 1885 সালে সর্বপ্রথম ফ্রান্স আবিষ্কার করে।

   10. অন্ধদের পড়াশোনা করার পদ্ধতিকে বলে ব্রেইল পদ্ধতি। এই পদ্ধতি সর্বপ্রথম ফ্রান্সের লুইস ব্রেইল চালু করেছিলেন, এবং তিনি ও ছিলেন একজন অন্ধ।

11. ফ্রান্স হলো এমন একটি দেশ যে দেশ  সব থেকে বেশি নোবেল পুরস্কার অর্জন করেছে।

  12. পর্যটকদের জন্য ফ্রান্স হল অত্যান্ত প্রিয় একটি জায়গা 2015 সালের গণনা অনুযায়ী এখানে প্রায় 8 কোটি পর্যটক ঘুরতে এসেছিলেন যা ছিল পুরো বিশ্বের মধ্যে সবথেকে বেশি।

13. ফ্রান্সে একটি ক্যাফে পয়েন্ট আছে যেখানে হ্যালো বা হাই বললে  বিল বাড়িয়ে দেওয়া হয়।

   12. হিটলার যখন ইহুদীদের গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছিল তখন ফ্রান্স ইহুদিদের ফ্রান্সের মক্স অফ প্যারিসে মুসলিম বলে আশ্রয় দিয়ে তাদের জীবন রক্ষা করে।

   13. ফ্রান্সে প্রথম গাড়ির নাম্বার প্লেট চালু হয়।

14. ফ্রান্সে আরেকটি অবাক করার বিষয় হলো 1748 থেকে 1772 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত আলু এখানে নিষিদ্ধ ছিল।

   15. অন্য দেশের তুলনায়  ফ্রান্সে বারোটি টাইম  জোন দেখতে পাওয়া যায়, যেখানে ভারতে একটি ও পাকিস্তানের দুটি।

  16. ফ্রান্সের ভাষা ফ্রেন্জ হলেও  এই ভাষার বেশি  ব্যবহার  আফ্রিকাতে হয়ে থাকে।

17. ফ্রান্সে  স্কাইপি থেকে ফ্রি কলের সুবিধা  পাওয়া যায়। এই সুবিধা ফ্রান্স ছাড়াও USA, UK ও তাইহান শুধু পেয়ে থাকে।

   18. এখানকার মানুষ অন্য দেশের তুলনায় 9 ঘন্টা শুধু ঘুমিয়ে থাকে।

   19. যদি কেউ মৃত্যুর আগে তার অর্গান ডোনেট না করে যেতে চান তাহলে তার অর্গান কাউকে ডোনেট করা হয় না.,কিন্তু যদি এরকম কোন কিছুই তিনি না করে থাকেন তাহলে তার অর্গান ডোনেট করা হয়।

  20. ফ্রান্সে 2012 সাল পর্যন্ত মেয়েদের ট্রাউজার পরা নিষেধাজ্ঞা ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.