শ্বাসকষ্ট প্রতিরোধে করে। ঢেঁড়সের অসাধারন কিছু উপকারিতা

নিউজ ডেস্কঃ ঢেঁড়সকে আমরা সাধারন মনে করি গুরুত্বহীন।কিন্তু এই ঢেঁড়স আমাদের শরীরে অজান্তেই অনেক উপকার করে। ঢেঁড়সে কিছু গুন যা আমাদের শরীরকে অনেক রোগ থেকে রক্ষা করে।ঢেঁড়সের মধ্যে রয়েছে অনেক ওষুধ গুন, এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, শ্বাসকষ্ট প্রতিরোধ করে। এছাড়াও রয়েছে  আরও অনেক গুন।এবার জেনে নেওয়া যাক এইসব গুন সম্পর্কে।

কোলেস্টেরল কমায়ঃ বাজে কোলেস্টেরল কমায় ঢেঁড়সের মধ্যে রয়েছে সলিউবল ফাইবার(আঁশ) পেকটিন যা রক্তে বাজে কোলেস্টেরলকে কমাতে সাহায্য করে ফলে হার্ট সুস্থ থাকে এবং অ্যাথেরোসক্লোরোসিস প্রতিরোধ করে।

ভ্রুন তৈরিতেঃ গর্ভাবস্থায় ভ্রুন তৈরির জন্য ভালো ঢেঁড়স।গর্ভাবস্থায় ভ্রুনের মস্তিষ্ক তৈরিতে সাহায্য করে, মিসক্যারেজ হওয়া প্রতিরোধ করে।

ত্বকের বিষাক্ত পদার্থ দূর করেঃ ঢেঁড়স ত্বকের বিষাক্ত পদার্থ দূর করে শরীরের টিস্যু পুনর্গঠনে ও ব্রন দূর করতে সাহায্য করে।

শ্বাসকষ্ট প্রতিরোধেঃ ঢেঁড়সের মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি, অ্যান্টিফ্লামেটোরি এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান। অ্যাজমার লক্ষন বৃদ্ধিতে প্রতিরোধ এবং অ্যাজমার আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে ঢেঁড়স বেশ উপকারী।

ক্যান্সার প্রতিরোধঃ ঢেঁড়স কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।ঢেঁড়সের উচ্চমাত্রার অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ক্ষতিকারক ফ্রি র‍্যাডিকেলসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ ঢেঁড়স রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এর মধ্যে রয়েছে উচ্চমানে ভিটামিন সি এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এছাড়াও আরও প্রয়োজনীয় মিনারেল যেমন- ক্যালসিয়াম,ম্যাগনেসিয়াম,ম্যাঙ্গানিজ যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

হজমে সহায়কঃ ঢেঁড়সে রয়েছে উচ্চমানের আঁশ যা হজমে সাহায্য করে। পেকটিন অন্ত্রের স্ফীতিভাব কমায়। এবং অন্ত্র থেকে বর্জ্য সহজে পরিষ্কার করে।

চুলের যত্নেঃ ঢেঁড়স চুলের কন্ডিশনার হিসাবে বেশ ভালো। এটি খুশকি দূর করে এবং শুষ্ক মাথার ত্বকের জন্য উপকারী।

বিষণ্ণতা দূর করেঃ ঢেঁড়স বিষণ্ণতা দুর্বলতা এবং অবসাদ দূর করে।

দৃষ্টি ভালো রাখেঃ ঢেঁড়সে আছে বিটাক্যারোটিন, ভিটামিন এ, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, লিউটিন যা চোখের গ্লুকোমা, চোখের ছানি প্রতিরোধে সাহায্য করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *