ঋতুকালীন অবস্থায় মেয়েদের এই ৮ টি কাজ করা উচিৎ নয়। কি কি কাজ?

যোগাসন পুরুষের জন্য ও মেয়েদের জন্য খুব বেশি প্রভেদ নেই।তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেহের গঠন অনুযায়ী তাদের কিছু প্রভেদ আছে।যেমন-

১) মেয়েদের দেহে মাতৃত্বের আগমন ঘটে ১২ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে।ঐ সময় তাদের মাসিক হয়।৩ দিন থেকে ৭ দিন পর্যন্ত তার মেয়াদ থাকে।তারা ঐ সময় রসাক্ত হয়।ঐ সময় তাদের কোনরূপ দৌড়-ঝাপ বা যোগাসন করা উচিত নয়।

২)মাসিকের সময় সিঁড়ি বেয়ে ওঠা নামা করবেন না। জলের কলসি-বালতি ধরবেন না বা তুলবেন না।ভাতের হাড়ি নামাবেন না।

৩)মাসিকের সময় ঠাণ্ডা লাগাবেন না, খালি গায়ে থাকবেন না।দীর্ঘসময় উনুনের কাছে বসবেন না। ভিজে কাপড়ে বা স্যাঁতস্যাঁতে জায়গায় বেশিক্ষণ থাকবেন না।ধান ভাঙা, মুড়ি ভাজা এসব কাজের থেকে বিরত থাকবেন।

৪)মাসিকের কাপড় গরম জলে ফুটিয়ে নির্বীজ করবেন।ধুলা বালি লাগে, কীট পতঙ্গ পড়ে এমন জায়গায় ঐ কাপড় শুকাতে দেবেন না।

৫)ঋতুকালীন অবস্থায় টক,ঝাল,মিষ্টি ও অধিক মশলা খাবার খাবেন না।

৬)ঐ সময় ঈযদুষ্ণ জলে স্নান করবেন এবং সহজ পাচ্য অথচ পুষ্টিকর খাবার খাবেন।

৭)মাসিকে অতিরিক্ত স্রাব বা পরিষ্কার না হওয়ায় বেদনার উদ্রেক হলে তলপেটে একখানা গামছা বা তোয়ালে জড়িয়ে মাথায় বালিশ না দিয়ে চিৎ হয়ে শুয়ে পায়ের তলায় বালিশ দিয়ে সামান্য উচু করুন।তাতে আরাম পাবেন।

৮) ঋতুকালীন সময়ে অত্যাধিক পেটে ব্যাথা হতে থাকলে হট ব্যাগ বা গরম জলের শিশির পেটের তলায় রাখতে পারেন অথবা তোয়ালে বা গামছা গরম জলে ভিজিয়ে পেটের নিচে রাখতে পারেন।

৯)গর্ভাবস্থায় ৩ মাস থেকে শিশুর জন্মের ৬ মাসের মধ্যে ধ্যানাসন(পক্ষাসন,বীরাসন) করবেন না।কোনো যোগাচার্য পরামর্শ ব্যতিত কোনরূপ আসন করবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *