৬ মাসের শিশু বা ৪০ বছর বয়েসের একজন পূর্ণ বয়েস্ক। প্রতিদিন কাদের কটি করে ডিম খাওয়া উচিৎ জানেন?

এ এন নিউজ ডেস্কঃ ডিম সম্পর্কে অনেকেরই ভুল ধারণা আছে। অনেকেই ভেবে থাকেন যে ডিম খেলে পেটে প্রবলেম হতে পারে। কিন্তু একটা বিষয় ডিমে যে পুষ্টি গুন থাকে তা আমরা কোন খাদ্য বা খাওয়ারে পাইনা।

খাওয়ার থেকে আমরা যে আটটি অ্যামাইনো অ্যাসিড পাই তার সবগুনই ডিমের মধ্যে আছে। অনেকের ধারণা, ডিম খেলে পেটে গ্যাস, অম্বল হাপানি আমাশা ডায়রিয়া হয়ে থাকে, তা ঠিক নয়।

শিশুর জন্মের ৬ মাস থেকে ডিম দেওয়া যায়।

শিশুদের সুসিদ্ধ ডিম দিন। হাপ সেদ্ধ নয়।

১৫ বছর বয়স পর্যন্ত ডিম একটি পরিপূর্ণ খাওয়ার।

৪০ বছর বয়স পর্যন্ত প্রতিদিন একটি করে ডিম খেতে পারেন।

গর্ভবতী মেয়েদের যদি অ্যালার্জি না থাকে তারা গর্ভাবস্থায় দিনে একটি থেকে দুটি ডিম খেতে পারেন।

ডিম সেদ্ধ বা রান্না করে দীর্ঘসময় রাখা উচিৎ নয়। প্রয়োজনে ফ্রিজে রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *