মৃত ছেলের সাথে জীবন্ত মেয়ের বিয়ে দেওয়া হয়। ফ্রান্সের অবাক করা কিছু নিয়ম

নিউজ ডেস্কঃ একটা সময় পৃথিবীর ৮ শতাংশ অংশে ফ্রান্স শাসন করত। কিন্তু আজ তাদের দেশের পরিসীমা শুনলে অনেকরই বিশ্বাস হবেনা। ফ্যাশানের সাম্রাজ্য ফ্রান্সে পৃথিবী থেকে সব থেকে বেশি পর্যটকরা ঘুরতে যান, যার কারনে এই ব্যবসা থেকে ফ্রান্সের ১০% জিডিপি আসে। এবং সবথেকে বড় বিষয় এখানে কিছু অদ্ভুত নিয়ম আছে যা অনেকেরই অজানা।

১) অন্যান্য দেশের তুলনায় এই দেশের জন্মের হার কম।তাই এই দেশে কোনো শিশু জন্মানোর পর যদি তাকে সঠিকভাবে লালন পালন করা হয় তাহলে ফ্রান্স সরকার থেকে মেডেল দেওয়া হয় ওই পরিবারকে।

২)পৃথিবীর মধ্যে প্যারিসই এমন একটি শহর যেখানের রাস্তা একটি Stop সাইন দেখতে পাওয়া যায়।

৩)ফ্রান্সে সবথেকে একটি অদ্ভুত তথ্য যা শুনলে আপনারা খুবই অবাক হবে।ওখানে মৃত ছেলে বা মেয়ে সাথে জীবন্ত ছেলে, মেয়ের বিয়ে দেওয়া হয়।তবে এর কারন হিসাবে জানা যায় যে ওখানে জীবনসাথিকে জীবন যাপনের জন্য বিবাহ করা হয় না সম্পত্তির জন্য বিবাহ করা হয়।যাতে মৃত্যুর পরে সব সম্পত্তি সরকারের দখলে না চলে যায়।তাই মৃত্যু ব্যাক্তির সাথে যেই ব্যাক্তি বিবাহ হয় তার নামে ওই মৃত্যু ব্যক্তি  সব সম্পত্তি হয়ে গেলেই তাকে কবর দেওয়া হয়।  

৪)ফ্রান্সকে পৃথিবীর সবচেয়ে ডিপ্রেশড কান্ট্রি বলা হয়ে থাকে।কারন ওখানে ৫ জন ব্যাক্তির মধ্যে একজন গুরুত্বরভাবে ডিপ্রেশানে থাকে।

৫) ফ্রান্সের লুইশ বাদশাকে সবচেয়ে কম সময় শাসন করা শাসক বলা হয়।লুইশ অ্যান্থনি মাত্র ২০ মিনিটের জন্য বাদশার মুকুট তার মাথায় পরেছিলেন।তাই এনাকে  ঐতিহাসিকবিদরা কিং অফ ২০ মিনিট বলে থাকে।

৬)আমাদের এখানে কোনো হোটেলে খেতে গেলে কোনো ওয়েটারকে হ্যালো বা প্লিস বলা হলে তাদেরকে অনেক সম্মান দেওয়া হয় যার ফলে ওয়েটাররা খুবই খুশি হন। তবে ফ্রান্সে একটি কফি পয়েন্ট রয়েছে যেখানে কোনো ওয়েটারকে হ্যালো বা প্লিস বললে আপনার বিল বাড়িয়ে দেবে।

৭) ফ্রান্সেই প্রথম দেশ যেখানে গাড়ির লাইসেন্স ও গাড়িতে নাম্বার প্লেট লাগানো ব্যাবস্থা শুরু করা হয়েছিল।

৮) ফ্রান্সে ১৭৪৮ থেকে ১৭৭২ সাল পর্যন্ত আলুকে পুরোপুরি নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।

৯)ফ্রান্সে শূকরকে নেপোলিয়ান নাম দেওয়া আইনগত অপরাধ যার ফলে শাস্তি পর্যন্ত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *