অম্বল, মৃগী, যক্ষ্মা, পেটের অসুখে চালকুমড়োর ব্যবহার

এ এন নিউজ ডেস্কঃ শাকসবজির বিকল্প খুঁজে পাওয়া খুবই মুশকিল। কারন এক সবজীতেই হাজারও রোগ সারাবার ক্ষমতা থাকে। আর আজকাল ডাক্তাররা রোগ সারাতে প্রাণীজ প্রোটিনের থেকে উদ্ভিদজ প্রোটিন বা ভিটামিনের উপর বেশি জোড় দিচ্ছেন। কারন বর্তমানে দিনে পচা জিনিস সতেজ রাখতে বিভিন্ন ক্যামিক্যাল ব্যবহার করছে, যা শরীরের পক্ষে খুবই ক্ষতিকর।

পাশাপাশি প্রাণীজ প্রোটিনে অনেক সময় পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থাকায় অনেকেই শাকসবজির উপর ভরসা করছেন। সামনেই গরমকাল বিভিন্ন শাকসবজির বাজারে পাওয়া যাবে। যার মধ্যে অন্যতম চালকুমড়ো। দামও খুব একটা বেশি নয়। কিন্তু শরীরের একাধিক রোগের পক্ষে খুবই উপকারি।

কুমড়ো বা চাল কুমড়ো খেলে পরিশ্রম করার ক্ষমতা বেড়ে শরীর পুষ্ট হয়।

এই সবজি বলকারক, পুষ্টিকারক, ফুসফুসও ভালো রাখে। চাল কুমড়োর বীজ কৃমি নাশ করে।

দু-চার চা চামচ চালকুমড়োর রস বের করে নিয়ে তাতে চিনি মিশিয়ে খেলে অম্বল বা অজীর্ণ রোগ সারে।

মৃগী এবং উন্মাদ রোগের পক্ষেও এটি উপকারি।

চাল কুমড়োর রস একটু চিনি ও জাফরানের সঙ্গে পিষে খেলে এইসব রোগে উপকার পাওয়া যায়।

কোনো কোনো চিকিৎসকের মতে যক্ষ্মা, অর্শ, গ্রহণী(একটানা পেটের অসুখ) প্রভৃতি অসুখেও চালকুমড়ো খেলে উপকার হয়।

ডায়াবেটিসে চালকুমড়োর রস খাওয়া অতি হিতকর। চালকুমড়োর মোরব্বা, হালুয়া, অবলেহ ও চালকুমড়োর বীজের লাড্ডু অনেক রোগ সারিয়ে তোলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *