ভাই বোনেদের খুনসুটি, অভাব, অভিযোগ দেখাগেল বসু পরিবারে

সুমিত, কলকাতাঃ বাংলা ছবি আজকাল মানুষ সিনেমা হলে গিয়ে দেখতেই ভুলে গেছে। যদি কোনও বন্ধুকে ফোন করে জিজ্ঞেস করি যে আগামিকাল নতুন এক বাংলা ছবি আসছে, যাবি নাকি দেখতে? সটান উত্তর, তুই বাংলা ছবি দেখতে সিনেমা হলে গিয়ে ভিড় বাড়াস? এই যে মানুষের উত্তর বা রুচি বোধ বদলাচ্ছে দিনে দিনে। বা ধরুন অ্যামাজন প্রাইম বা নেট ফিল্কসের যুগে মানুষ সিনেমা হলে গিয়ে সাধারন ছবি দেখতেই চায়না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তাদের পছন্দের তালিকায় কোনও হিন্দি বা ইংলিশ ছবি দেখতে প্রাধান্য পায়। সেক্ষেত্রে কি বাংলা ছবির পরিচালকরা কোনও ভাবে দায়ী? কারন প্রচুর হিন্দি এবং দক্ষিনের ছবিকে কপি পেস্ট করে বাংলা ছবি তৈরি করা হয়েছে। এবং ছবি দেখতে বসার আগে তাদের সবার আগে মাথায় প্রশ্ন আসে যে এটি কোন ছবির নকল?

সেক্ষেত্রে আজ বলতে ইচ্ছা করছে যে এখন কিন্তু নতুন গল্পের মোড়কে অনেক বাংলা ছবি রিলিজ করছে। এবং যা গল্পকে প্রাধান্য দিয়েই। শুধুতাই নয়। আজকাল তো প্রচুর বাংলা ছবির রিমেক করা শুরু হয়েছে।

সেরকমই নতুন এক গল্পের স্বাদ পাওয়া গেল বসু পরিবারে। ছবিতে স্টার কাস্ট থাকলেও এক রাজকীয় পরিবারের গল্প নিয়েই ছবি।

বিয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে এক জায়গায় পরিবারের সকল মানুষের আসা। এবং সেখান থেকেই গল্পের সূত্রপাত। যেখানে পরিচালক সুমন ঘোষ একটা কথা খুব ভালো করে স্পষ্ট করেছেন যে পরিবারের সকল মানুষ একটা জায়গায় আসলে নিজেদের নস্টালজিয়া বোধ করার পাশাপাশি নিজেদের ভুলত্রুটি গুলিও মনে পরে যায়। এবং একটা কথা হলফ করে বলতে পারি যে বাবা, মা, বন্ধুবান্ধবদের বাইরে ভাই বোনেদের যে খুনসুটি বা অভাব অভিযোগ থাকে তা কিন্তু চোখে আঙুল দিয়ে প্রমান করেছেন তিনি।

ছবিতে প্রত্যকের ভূমিকা যথেষ্ট প্রশংসনীয়। এবং শাশ্বত মুখোপাধ্যায় এককথায় অনবদ্য। নবাগত শ্রীনন্দা  শঙ্কর বেশ পরিনত। দেখে বোঝার একটুও উইপায় নেই যে তাঁর এটি প্রথম ছবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *